আট কুঠুরি নয় দরজা - সমরেশ মজুমদার
Skip to content
Shahriar Alam Rakib Blogs Feature Image
Home » আট কুঠুরি নয় দরজা – সমরেশ মজুমদার

আট কুঠুরি নয় দরজা – সমরেশ মজুমদার

|| রিভিউ ||
বই – আট কুঠুরি নয় দরজা
লেখক – সমরেশ মজুমদার
প্রকাশক – আনন্দ পাবলিশার্স প্রাইভেট লিমিটেড, কলকাতা
প্রকাশকাল – নভেম্বর, ১৯৯৩
ঘরানা – পলিটিকাল/মিস্ট্রি থ্রিলার
প্রচ্ছদ – অনুপ রায়
পৃষ্ঠা – ২৩২
মূল্য – ৫০ রুপি (লোকাল প্রিন্ট ৭০-৮০ টাকা পড়বে)

এই উপন্যাসের পটভূমি ভারতবর্ষের পার্শ্ববর্তী পাহাড়ঘেরা একটা রাজ্য। যেখানে চলছে একনায়কতন্ত্র। বালক একজন রাজাকে সামনে রেখে নিজেদের খেয়ালখুশিমতো সেই রাজ্য চালাচ্ছে কয়েকজনের একটা বোর্ড। বিদেশি ঋণে জর্জরিত এ রাজ্যে কোন সুবিচার নেই। বরং স্বেচ্ছাচারী পুলিশ বাহিনির অত্যাচারে নিঃশেষ হয়ে যেতে বসেছে স্বাধীনতা।

এহেন অবস্থায় বিপ্লবের ঝান্ডা উঠিয়ে ধরলো বিপ্লবী আকাশলাল। সাধারণ মানুষ এতে প্রত্যক্ষভাবে অংশগ্রহণ না করলেও পূর্ণ সমর্থন জানালো এতে। স্বাভাবিকভাবেই, আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটলো। এদিকে পুলিশের অত্যাচারে তিষ্ঠানো দায়।
সাধের বিপ্লব একসময় যেন মাথাচাড়া দিয়ে উঠেও দমে গেলো। একের পর এক নেতাকর্মী মারা পড়তে লাগলো পুলিশের গুলিতে ও কনসেন্ট্রেশন ক্যাম্পে। শুধুমাত্র নেতা আকাশলাল ও তার অতি ঘনিষ্ঠ ডেভিড, হায়দার ও ত্রিভুবন পালিয়ে বাঁচলো।
বনের ভেতরের নির্জন বাংলোয় পাওয়া গেলো প্রভাবশালী এক ব্যবসায়ীর গলিত লাশ। ডাক্তার স্বজন আর তার স্ত্রী পৃথা হলো জিম্মি। খুনী কে?

ওদেরকে পাগলের মতো খুঁজে ফিরছে পুলিশ কমিশনার ভার্গিস। আকাশলালকে ধরা ও মারাই তার জীবনের মূল লক্ষ্য। পর্দার আড়ালে আছেন একজন প্রভাবশালী মন্ত্রী আর তাঁরও আড়ালে আছে ভয়ঙ্কর বোর্ড। কিন্তু বোর্ডের পেছনেও একজন আছেন। রহস্যময়ী একজন। কাহিনির উত্থানপতনের রেখাচিত্র দেখলে মনে হয় তাঁর অঙ্গুলিহেলনেই ঘটছে সব। বারবার একজন ‘ম্যাডাম’র পদচারণায় আন্দোলিত হয়ে উপন্যাসের কাহিনি। তিনি কে? তাঁর উদ্দেশ্য কি সৎ?

তারপরে নানা ভাঙ্গাগড়ার মধ্য দিয়ে এগিয়ে গেছে কাহিনি। পুলিশের হেফাজতে মারা গেছে আকাশলাল। আবার ফিরেও এসেছে। কিভাবে? মৃত মানুষ কি ফিরতে পারে? আকাশলাল কি ফকির লালনের আট কুঠুরি নয় দরজার রহস্য ভেদ করতে পেরেছিলো? পুরো উপন্যাস না পড়লে এসব প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবেনা।

উপন্যাসের প্রতিটা চরিত্রই শক্তিশালী। বিশেষ করে আকাশলালের ব্যক্তিত্ব দেখে মুগ্ধ হয়েছি। অল্প সময়ের জন্য আসা মেয়ে সাংবাদিক অনীকার চরিত্রটাও স্থায়িত্বের বিচারে যথেষ্ট শক্তিশালী। ভালো লেগেছে আকাশলালের সাথে ভার্গিসের টক্কর।
সমরেশ মজুমদারের এই উপন্যাসের ফ্ল্যাপে লেখা আছে, ‘এ কাহিনি একটা নিখাদ থ্রিলার। সম্পূর্ণ মৌলিক। যেকোন বিদেশি থ্রিলারের সাথে টক্কর দেয়ার ক্ষমতা আছে এর।’ কথাটা আমিও মানলাম বইটা পুরো শেষ করে। শেষের দিকে যে ট্যুইস্ট লেখক দিয়েছেন, তা এককথায় অতুলনীয়। যারা পড়েননি, পড়ে ফেলতে পারেন এই অনবদ্য

Read More: Top 5 Freelancing Skills to Learn for Beginners

For Bengali Book Review Please Visit: Boier Feriwala

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x